বিজেপির সভাস্থলে টিএমসিপির “শুদ্ধিকরণ পুজা”! ছেটানো জল শান্তি জল!

রীতিমতো রীতি, আচার মেনে হল পুজো। ছিল ফুল, বেলপাতা, পাঁচ রকমের ফল, মিষ্টি। ছিল মোমবাতি, ধূপকাঠিও।

14

ছিল বিজেপির প্রকাশ্য জনসভা। যার নাম দেওয়া হয়েছিল “যোগদান মেলা”। বাঘাযতীন পার্কের সভায় যোগ দিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার, মাদারিহাটের বিধায়ক মনোজ টিজ্ঞা, রাজ্য সাধারন সম্পাদক সায়ন্তন বসু, রথীন্দ্র নাথ বসু সহ অন্য নেতা কর্মীরা। যে সভায় আগাগোড়া রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস, মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করেন বিজেপি নেতারা। আসন্ন নির্বাচনে রাজ্যে পরিবর্তন আসছেই বলে দাবী করেন বিজেপি নেতারা। রাজ্যে গনতন্ত্র নেই, আইনের শাসন নেই বলে অভিযোগও করেন। সেই সভাতেই তৃণমূল, সিপিএম এবং কংগ্রেস ছেড়ে শিলিগুড়ির গ্রামীণ এলাকা মাটিগাড়া, । ছিল র কয়েকশো নেতা, কর্মী আজ যোগ দেন বিজেপিতে। তাদের হাতে গেরুয়া ঝাণ্ডা তুলে দেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

 বিজেপির সভা শেষ হতেই শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্কের মাঠ দখলে নেয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সদস্যরা। রীতিমতো রীতি, আচার মেনে হল পুজো। ছিল ফুল, বেলপাতা, পাঁচ রকমের ফল, মিষ্টি। ছিল মোমবাতি, ধূপকাঠিও। বাজলো ঢাকও। মাঠকে পুজো দিলেন তারা। মাঠের গেটে হল পুজোর্চনা। পবিত্রতার পুজো। গোটা মাঠজুড়ে ছেটানো হল মাটির কলসিভরা শান্তি জল।

বিজেপির সভা শেষ হতেই শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্কের মাঠ দখলে নেয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সদস্যরা। রীতিমতো রীতি, আচার মেনে হল পুজো। ছিল ফুল, বেলপাতা, পাঁচ রকমের ফল, মিষ্টি। ছিল মোমবাতি, ধূপকাঠিও। বাজলো ঢাকও। মাঠকে পুজো দিলেন তারা। মাঠের গেটে হল পুজোর্চনা। পবিত্রতার পুজো। গোটা মাঠজুড়ে ছেটানো হল মাটির কলসিভরা শান্তি জল।

 কিন্তু কেন এই আয়োজন? জেলা তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি নির্ণয় রায় জানান,

কিন্তু কেন এই আয়োজন? জেলা তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি নির্ণয় রায় জানান, “বিজেপি ধর্মের নামে রাজনীতি করে। মিথ্যে কথা বলে। আর তাই মাঠ আজ অপবিত্র হয়ে পড়েছিল। মাঠকে পবিত্র করে তুলতেই এই শুদ্ধিকরণ পুজোর আয়োজন করা হয়। ভগবানের কাছে সবাই সমান। সেখানে রাজনীতির কোনো ঠাঁই নেই। তাই এই পুজো করা। সকলের মঙ্গল কামনা করা হয়।”

 রাজ্যে এর আগে এমন শুদ্ধিকরণ পুজো কোথাও হয়নি বলেই রাজনৈতিক মহলের ধারণা। তবে একে গুরুত্ব দিতে নারাজ জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। বাংলায় একুশের কুরুক্ষেত্রের লড়াইয়ে এক ইঞ্চি জমি কেউ কাউকে যে ছাড়বে না তা আজ আরো একবার পরিষ্কার হল শিলিগুড়িতে শুদ্ধিকরণ পুজোর মধ্য দিয়ে!Input- Partha Sarkar

রাজ্যে এর আগে এমন শুদ্ধিকরণ পুজো কোথাও হয়নি বলেই রাজনৈতিক মহলের ধারণা। তবে একে গুরুত্ব দিতে নারাজ জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। বাংলায় একুশের কুরুক্ষেত্রের লড়াইয়ে এক ইঞ্চি জমি কেউ কাউকে যে ছাড়বে না তা আজ আরো একবার পরিষ্কার হল শিলিগুড়িতে শুদ্ধিকরণ পুজোর মধ্য দিয়ে!Input- Partha Sarkar

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here