এবার তথ্য সুরক্ষা নিয়ে Facebook ও Twitter কর্তৃপক্ষকে জরুরি তলব কেন্দ্রীয় সংসদীয় কমিটির

14

এবার খবরের শিরোণামে দুই সোশ্যাল মিডিয়া সাইট ফেসবুক ও ট্যুইটার। ‌সোশ্যাল মিডিয়ায় নাগরিকদের অধিকার, গুজব বা ভুয়ো খবর রোখা এবং ডিজিটাল মাধ্যমে নারী–সুরক্ষা নিয়ে জানতে চেয়ে ফেসবুক  ও ট্যুইটার কর্তৃপক্ষকে তলব করল সংসদীয় কমিটি। 

এমনিতেই হোয়াটসঅ্যাপে তথ্য সুরক্ষা নিয়ে দেশজুড়ে আলোচনা চলছে। সেই সময়ে  কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুরের নেতৃত্বাধীন তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক স্থায়ী সংসদীয় কমিটির দুই সোশ্যাল মিডিয়া জায়েন্ট ডেকে পাঠান তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে। সংসদীয় কমিটির পাঠান সমনে আগামী ২১ জানুয়ারি দুই সংস্থার আধিকারিকদের উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। 

সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহার রুখতেই এই পদক্ষেপ বলে জানা যাচ্ছে।  সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য পূরণের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে বলে বহুদিন ধরেই অভিযোগ উঠছে। ভারতের মতো বড় বাজারকে হাতে রাখতে গিয়ে কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপির হয়ে পক্ষপাতদুষ্টতার অভিযোগ উঠছে ফেসবুকের মত সাইটের বিরুদ্ধে। এদেশে ফেসবুকের নীতি রূপায়ণের দায়িত্বে থাকা এক শীর্ষকর্তার বিরুদ্ধে এই নিয়ে মামলা পর্যন্ত হয়েছে। ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানো এবং উসকানির অভিযোগও ওঠে সেই মহিলা আধিকারিক আঁখি দাসের  বিরুদ্ধে।  যার জন্য শেষপর্যন্ত ফেসবুক ছাড়তে হয় আঁখিকে। গত বছর আগস্ট মাসে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল।ইতিমধ্যেই ফেসবুককে রাজনৈতিক লাভের জন্য অপব্যবহারের যে অভিযোগ উঠেছিল তার তদন্ত করছে সংসদীয় কমিটি। গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে এই কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

গত কয়েকবছর ধরেই  ভারতে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার বাড়ছে। করোনাকালে লকডাউনের পর যা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই  সঙ্গেই বেড়েছে সাইবার অপরাধও। এখানেই শেষ নয়, ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। এই প্রসঙ্গেই এবার ফেসবুক-ট্যুইটারের আধিকারিকদের সমন পাঠিয়েঠে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক কেন্দ্রীয় সংসদীয় কমিটি। বিবৃতিতে বৈঠকের বিষয় হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহার রুখতে এবং ব্যবহারকারীদের তথ্য সুরক্ষিত রাখতে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, সেই সম্পর্কে জানতেই মূলত ডাকা হয়েছে ওই দুই সংস্থার আধিকারিকদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here