এবার অমিত শাহের বঙ্গসফর শুরু হচ্ছে স্বামীজির হাত ধরে,জানুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরসূচি

84

গত মাসেই  দু’দিনের সফর বাংলায় এসেছিলেন। ফের একবার রাজ্যে পা রাখতে চলেছেন তিনি। শোনা যাচ্ছে ভোটের আগে প্রতিমাসেই নিয়মিত বাংলায় আসবেন তিনি। শনি ও রবি রাজ্যের একাধিক অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তারজন্য শুক্রবার রাতেই কলকাতায় পা রাখলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। রাজ্য সফরের আগে বঙ্গবাসীর মন জিততে বাংলায় ট্যুইটও করলেন বিজেপির প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি। সেখানে শাহ লেখেন, “পশ্চিমবঙ্গের প্রিয় ভাই এবং বোনেদের সাথে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আলাপচারিতার জন্য আমি উদগ্রীব রইলাম।”

শনিবার সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে অমিত শাহ যাবেন বিবেকানন্দ রোডে স্বামী বিবেকানন্দর বাড়িতে। সেখানে স্বামীজির মূর্তিতে পুষ্পার্ঘ নিবেদন করে বিমানবন্দর হয়ে মেদিনীপুরের উদ্দেশে উড়ে যাবেন অমিত শাহ।

স্বামী বিবেকানন্দর বাসভবনের পরিচালনা সংগঠনের সম্পাদক স্বামী জ্ঞানলোকানন্দ জানিয়েছেন, শনিবার সকালে মিনিট ১৫–র মতো সেখানে থাকবেন অমিত শাহ। করোনা আবহে তাঁর সঙ্গে সর্বাধিক ১০ জন সেখানে ঢুকতে পারবেন। দর্শন ও প্রণাম শেষে অমিত শাহের হাতে তুলে দেওয়া হবে চা, শুকনো প্রসাদ ও বই। একিইসঙ্গে তাঁকে বিশেষ প্রসাদী শাল দেওয়ারও পরিকল্পনা করেছেন কর্তৃপক্ষ। জানা গিয়েছে, সেখান থেকে বেরিয়ে বিমানবন্দর থেকে হেলিকপ্টারে করে অমিত শাহ পৌঁছবেন মন্দিরপুরে।

মেদিনীপুর সফরের মূলে মেদিনীপুর কলেজ মাঠের জনসভা থাকলেও এদিন একাধিক কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। দুপুর ১২টা নাগাদ হেলিকপ্টারে মেদিনীপুরে পৌঁছে সড়কপথে হবিবপুরে গিয়ে সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দিরে পুজো দেবেন তিনি। এর পরেই যাবেন মন্দির সংলগ্ন ক্ষুদিরামের মাসির বাড়িতে। সেখানে তিনি ক্ষুদিরামের মূর্তিতে মাল্যদান করবেন। এর পর ১২টা ৪৫ নাগাদ তিনি পুজো দেবেন দেবী মহামায়া মন্দিরে।

এবারও তাঁর সফরে স্থানীয় কারও বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজের কর্মসূচি রয়েছে। জানা গিয়েছে, মহামায়া মন্দিরে পুজো দেওয়া ও জনসভার মঞ্চে ওঠার মাঝেই বেনাজুরি গ্রামে স্থানীয় বিজেপি কর্মী সনাতন সিংহের বাড়িতে দুপুরের খাবার খাবেন অমিত শাহ। এর পরই দুপুর ২টো নাগাদ মেদিনীপুর কলেজ মাঠের জনসভায় হাজির হবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সভা সেরে কলকাতায় ফিরে আসবেন তিনি।

এদিকে, বিজেপি–র সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নড্ডার কনভয়ে হামলার ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় তার জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নিরাপত্তায় জোর দিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। বৃহস্পতিবারই এ ব্যাপারে রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছে সিআরপিএফ। শনিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যে সব এলাকা বা রাস্তা দিয়ে যাবেন সেখানে কীভাবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজানো হচ্ছে সে ব্যাপারে চিঠিতে জানতে চেয়েছে সিআরপিএফ। অমিত শাহয়ের সফরে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করার কথা বলা হয়েছে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here