সোনাজয়ী ক্রীড়াবিদ পেট চালাতে বিক্রি করছেন হাঁড়িয়া

57

এবার প্রকাশ্যে এল ঝাড়খণ্ডের এক ক্যারাটে খেলোয়াড়ের খবর।দেশের ক্রীড়ামহল তাঁকে এক কথায় কুর্নিশ জানায়।  জাতীয় ক্যারাটে আইকন রাঁচির বিমলা মুণ্ডা আপাতত ক্যারেটে রিং থেকে নেমে এসেছেন ফুটপাথে। দিন গুজরান করতে বিক্রি করছেন হাঁড়িয়া। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। শেষপর্যন্ত সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর খবর ভাইরাল হতেই নড়েচড়ে বসে ঝাড়খণ্ড সরকার। 

২০১১ সালে ৩৪ তম জাতীয় গেমসে রাজ্যের হয়ে রূপো জিতেছিলেন বিমলা। এছাড়া ২০১২ সালে বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার আয়োজিত চতুর্থ আন্তর্জাতিক কুডো চ্যাম্পিয়নশিপে সোনাও জিতেছিলেন। পরবর্তীতে রাজ্য সরকার যে ৩৩ জন খেলোয়াড়কে চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তাতে নামও ছিল বিমলার।

বাড়ির কাছেই আখার তৈরি করেই ক্যারাটে শেখাতেন বিমলা। কিন্তু বাধ সাধে করোনা। বিকল্প খুঁজতে থাকেন তিনি।ক্ষোভ উগরে দিয়ে বিমলা বলেন, “মনপ্রাণ দিয়ে খেলেছিলাম, ভেবেছিলাম সরকার পাশে থাকবে, চাকরি পাব। সরকার কোনও নজরই দেয়নি। আমরা আদিবাসী, হাঁড়িয়া বিক্রি আমাদের অনেকদিনের প্রথা। সেই কাজই করছি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here