জন্মদিনে ‘মিসাইল ম্যান’ কালামকে শ্রদ্ধা দেশবাসীর, ফিরে দেখা যাক তাঁর জীবন পথ

65

১৯৩১ সালের ১৫ অক্টোবর। তামিলনাড়ুর রামেশ্বরমে দরিদ্র্য পরিবারের সন্তান তিনি। পিতা মৎস্যজীবীর কাজ করতেন। তিনি আবুল পকির জয়নল আবদিন আব্দুল কালাম, দেশের একমাত্র বৈজ্ঞানিক যিনি রাষ্ট্রপতির পদে অভিষিক্ত হন।দেশের দুই গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেপণাস্ত্র ‘অগ্নি’ ও ‘পৃথিবী ’-র ডেভেলপমেন্ট ও অপারেশনের দায়িত্বে তাঁর অবদানের জন্য তাঁকে ডাকা হয় ‘মিসাইল ম্যান অফ ইন্ডিয়া’ নামে। আজ জন্মদিনে ফিরে দেখা যাক তাঁর জীবন পথ।

একসময়ে খবরের কাগজ বিলি করেছেন রোজগারের তাগিদে। অল্প বয়েস থেকেই স্বপ্ন ছিল ফাইটার পাইলট হওয়ার। আটজন চালককে নির্বাচন করা হলেও কালামের নাম দুর্ভাগ্যজনক ভাবে ছিল নয় নম্বরে। ফলে সেই স্বপ্ন অধরা থাকলেও, ভারতের মিসাইল ম্যান তিনি।

৪০ টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাম্মানিক ডক্টরেট অর্জন করেন কালাম। ছাত্রমহলে তাঁর জনপ্রিয়তা অনের নামী শিক্ষকের কাছেও ঈর্ষণীয় ছিল।

২০০২ সালে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন আব্দুল কালাম। সে বছরই সর্বসাধারণের জন্য রাষ্ট্রপতিভবন খুলে দেওয়া হয়।

২০১৫ সালে শিলং আইআইএম-এর মঞ্চে ছাত্রদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে দিতেই হঠাৎই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বেহুঁশ হয়ে যান মিসাইল ম্যান। দু’কিলোমিটার দূরে বেথেনি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here