পরিষ্কার ওয়াইড দিতে গিয়েও সিদ্ধান্ত বদলালেন আম্পায়ার!

48

পরিষ্কার ওয়াইড ছিল। হাতও তুলে দিয়েছিলেন আম্পায়ার। কিন্তু ‘রেগে’ গিয়ে দৃশ্যতই তাকে প্রভাবিত করলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। আর প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের ‘ভয়ে’ নিজের সিদ্ধান্তও পরিবর্তন করে নিলেন আম্পায়ার।

মঙ্গলবার দুবাইয়ে সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ১৮তম ওভারে ১৯ রান দেন করন শর্মা। এই ওভারে একটি ছক্কা এবং দুটি চার মারেন রশিদ খান। তাতে রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন ‘ক্যাপ্টেন কুল’ধোনি। ধমক দিতে দেখা যায় করনকে। কারণটা স্পষ্ট ছিল। সেই বড় ওভারের জন্য শেষ ১২ বলে হায়দরাবাদের ২৭ রান প্রয়োজন ছিল। এরমধ্যেই গুরুত্বপূর্ণ ১৯তম ওভারে বল করতে আসেন শার্দুল ঠাকুর। প্রথম বলে ২ রান নেন রশিদ খান। পরের বলটি অফস্টাম্পের বেশ খানিক বাইরে করেন শার্দুল। স্বভাবতই ওয়াইড দেন আম্পায়ার পল রেইফেল। সেই পর্যন্ত ঠিক ছিল। কিন্তু পরের বলও ওয়াইড করেন শার্দুল। স্পষ্টতই দেখা যায়, লাইনের বাইরে পড়েছে বল। ওয়াইড দেওয়ার জন্য কিছুটা হাতও তুলে দেন আম্পায়ার। কিন্তু মানতে পারেননি ধোনি। বেরিয়ে আসে তার ‘রাগ’। দু’ হাত তুলে আম্পায়ারকে কিছু বলেন তিনি। আম্পায়ার ধোনির দিকে তাকিয়ে কার্যত ‘ভয়ে ভয়ে’ হাত নামিয়ে নেন।

এরপরই প্রশ্ন উঠছে আম্পায়ারদের ক্ষমতা ও দৃঢ়তা নিয়ে। যতই কিংবদন্তি খেলোয়াড় হোক না কেন, তার দ্বারা কীভাবে প্রভাবিত হতে পারেন একজন আম্পায়ার, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

অন্য খেলায় তো এমনটা হয় না। কয়েকদিন আগেই যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে সেই প্রমাণও মিলেছিল। বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। রজার ফেদেরারের মতো তারকাকেও আম্পায়ারের শাস্তির মুখে পড়তে হয়েছে। কিন্তু যথারীতি সেইসবের ধার ধারেননি রেইফেল। বরং ধোনির রণমূর্তি দেখে তার কাছে কার্যত ‘বশ্যতা’ স্বীকার করেন তিনি। 

চেন্নাইয়ের হয়ে আইপিএলে পরপর হারের মুখ দেখতে অনভ্যস্ত ধোনির সেই ‘রাগ’ না হয় স্বাভাবিক। কিন্তু আম্পায়ার হিসেবে রেইফেল যে কাজটা করলেন, সেজন্য কি তার জবাবদিহি চাইবে আইপিএল কর্তৃপক্ষ? 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here