‘হেপাটাইটিস সি’ ভাইরাস আবিষ্কারের স্বীকৃতি হিসেবে নোবেল পুরস্কার পেলেন তিন বিজ্ঞানী

25

বিশ্ব জুড়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেই নতুন ‘হেপাটাইটিস সি’ ভাইরাস আবিষ্কারের স্বীকৃতি হিসেবে নোবেল পুরস্কার পেলেন তিন বিজ্ঞানী। নয়া ভাইরাসের সন্ধান দিয়ে মার্কিন বিজ্ঞানী হার্ভে জে অলটার ও চার্লস এম রাইসের সঙ্গে ব্রিটিশ বিজ্ঞানী মাইকেল হাউটন এই পুরস্কার পেয়েছেন বলে সোমবার ঘোষণা করেছে নোবেল কমিটি।

লিভার সিরোসিস ও লিভার ক্যানসারের অন্যতম কারণ এই ‘হেপাটাইটিস সি’ ভাইরাস আবিষ্কার করে বিশ্বে রক্তবাহিত রোগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্যই তিন বিজ্ঞানীকে এই পুরস্কারের দেওয়ার সিদ্ধান্ত, জানিয়েছে নোবেল কমিটি।

এই তিন বিজ্ঞানীকেই এ বার নোবেল পুরস্কারের জন্য বেছে নেওয়ার কারণ হিসেবে নোবেল কমিটি জানিয়েছে, ‘হেপাটাইটিস এ’ এবং ‘হেপাটাইটিস বি’ ভাইরাস আবিষ্কার ছিল গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি। এই দুই ভাইরাস সংক্রমণের পরীক্ষা ও চিকিৎসা পদ্ধতি থাকলেও অনেক ক্ষেত্রেই রক্তবাহিত এক প্রকারের হেপাটাইটিস-এর ব্যাখ্যা মিলত না চিকিৎসক-বিজ্ঞানীদের কাছে। ‘হেপাটাইটিস সি’ সেই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে। ক্রনিক হেপাটাইটিসের কারণ জানা, হেপাটাইটিস সি সংক্রমণ চিহ্নিত করার জন্য রক্ত পরীক্ষা এবং সম্ভাব্য ওষুধ আবিষ্কারের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত খুলে দিয়েছে, যা কোটি কোটি মানুষের প্রাণ বাঁচাতে সাহায্য করবে।

গত শতাব্দীর চারের দশকে হেপাটাইটিস এ ভাইরাসের প্রথম সন্ধান মিলেছিল। জানা গিয়েছিল, মূলত জলবাহিত এই ভাইরাস থেকে লিভারের নানা সমস্যা তৈরি হয়। তার পর ওই শতাব্দীরই ছয়ের দশকে বিজ্ঞানী বারুচ ব্লুমবার্গ আবিষ্কার করেন হেপাটাইটিস বি। রক্তবাহিত এই ভাইরাসের সংক্রমণ আরও মারাত্মক এবং তার থেকে যে লিভার সিরোসিস ও লিভার ক্যানসার হতে পারে, তা প্রথম গবেষণায় দেখিয়েছিলেন বিজ্ঞানী ব্লুমবার্গ। তার জন্য ১৯৭৬ সালে নোবেল পুরস্কার পান তিনি। এ বার সেই একই গোত্রের আরও একটি ভাইরাসের সন্ধান দিয়ে নোবেল পেলেন তিন চিকিৎসা বিজ্ঞানী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here