সংক্রমণের ভয় উপেক্ষা করে দিল্লি বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষায় হাজারও মানুষ

56

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র  মোদির ডাকা ২১ দিনের লকডাউনের ফলে, খাদ্য, বাসস্থান, রোজগার বন্ধ করে উত্তরপ্রদেশ সীমানা এলাকা থেকে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছেন হাজারখানেক পরিযায়ী শ্রমিক। এই মারণ ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়া রুখতে লকডাউন জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার, সমস্ত আন্তরাজ্য বাস ও ট্রেন পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে, ফলে কোনও গণপরিবহন না পেয়ে হেঁটেই বাড়ি ফেরার চেষ্টায় পরিযায়ী শ্রমিকরা। তবে তারমধ্যেই বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফে। এদিন সকালে যোগী আদিত্যনাথ সরকার জানায়, তাঁদের তরফে ১,০০০ বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং দিল্লির অরবিন্দ কেজরিওাল সরকারের তরফে ২০০ বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের সাহায্য করতে বদ্ধপরিকর কেন্দ্র, এবং রাজ্য সরকাগুলিকেও তাদের বিপর্যয় মোকাবিলা তহবিল কাজে লাগাতে বলা হয়েছে, পাশাপাশি জাতীয় সড়কের রাস্তা ধারে ত্রাণ তহবিল তৈরি করতে বলা হয়েছে এবং বহু পরিযায়ী শ্রমিক যাতে সীমানা না পেরোয় তা সুনিশ্চিত করতে হবে।

যাইহোক, তিনি সতর্ক করে দেন, ভাইরাস সংক্রমণ যাতে না ছড়ায়, সেদিকে লক্ষ্য রেখে, ক্যাম্প তৈরি করতে হবে। একই আবেদন করেছেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল, উপমুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়া, পাশাপাশি তাঁরা উল্লেখ করেন, চার লক্ষ মানুষের মধ্যাহ্নভোজ ও নৈশভোজের ব্যবস্থা করা হয়েছে দিল্লি সরকারের।

মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, “ভাইরাস ছড়ানো রুখতে এটাই একমাত্র পথ”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here